ফ্রিল্যান্সিং

লেখাপড়ার পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং

অনেকেই লেখাপড়ার পাশাপাশি নিজেকে একজন মুক্ত পেশাজীবী (ফ্রিল্যান্সার) হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেন। যাঁদের কম্পিউটার, স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ আছে, তাঁরা যথাযথ দক্ষ হয়ে ফ্রিল্যান্সিং ক্ষেত্রে কাজ করতে পারেন। সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। জেনে নিন সেগুলো সম্পর্কে:

১. ফ্রিল্যান্সিং একটু কম বয়সে শুরু করা ভালো, কারণ পড়াশোনার পাশাপাশি আপনি কাজ করতে পারবেন। তবে একাজে যথেষ্ট ধৈর্য থাকতে হবে।

২. প্রথমেই আপনাকে ইন্টারনেট সম্পর্কে খুব ভালো ধারণা তৈরি করতে হবে। এরপর আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে কোন বিষয়টি নিয়ে আপনি ফ্রিল্যান্সিংয়ে ক্যারিয়ার গড়তে চান, যেমন: ডিজিটাল মার্কেটিং, গ্রাফিকস ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট প্রভৃতি। এরপর ওই নির্দিষ্ট বিভাগ সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা লাভ করুন।

৩. আপনি সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে কাজ করতে চাইলে এ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা থাকতে হবে, যা আপনাকে একটি স্থায়ী ক্যারিয়ার গড়তে সাহায্য করবে।

৪. প্রাথমিক ধারণা লাভের জন্য আপনি ইউটিউবে খোঁজ করুন, পাশাপাশি সিপিএ মার্কেটিং এর কাজ করে এরকম ফ্রিল্যান্সারদের সাথে কথা বলে জেনে নিন তারা কোথা থেকে? কিভাবে? শিখেছে।

৫. সিপিএ মার্কেটিং শেখায় এরকম একটি ভালো মানের প্রতিষ্ঠান দেখে তাদের কাছ থেকে হাতেখড়ি নিন। তারা আপনাকে সঠিক গাইডলাইন দিয়ে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করবে।

৬. এরপর ভালো মার্কেটপ্লেস/নেটওয়ার্ক যেমন: সিপিএ লিড, সিপিএ গ্রিপ বা সিপিএ বিল্ডের মতো প্ল্যাটফর্মে নিজের প্রোফাইল তৈরি করে কাজ শুরু করুন।

৭. পাশাপাশি অনুরোধ থাকবে, আপনার পড়াশোনার ক্ষতি করবেন না। পড়াশোনার ফাঁকে সময় পেলে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তোলার জন্য বিভিন্ন বিষয় হাতেকলমে শিখতে পারেন।

যা যা শেখানো হবে

অন্যান্য